সন্তানের অপেক্ষায় মা

চট্টগ্রাম: এই প্রথম আমার ছেলে নিজ স্কুলের বাইরে এসে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। ছেলে রাতে বেশ কয়েকবার কোন কেন্দ্রে পরীক্ষা হবে তা জানতে চেয়েছে। পরীক্ষার হলে কি নিজ স্কুলের কোন স্যার থাকবেন কি না, এসব নানান প্রশ্ন করেছিল। তাই একটু চিন্তিত। ছেলে নার্ভাস ফিল করছে কি না।’

রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর জামালখানে মোড়ে ফাতেমা নামে এক অভিভাবক এসব কথা বলছিলেন।
নগরীর ডা. খাস্তগীর স্কুল কেন্দ্রে ছেলেকে প্রবেশ করিয়ে দিয়ে বাইরে অপেক্ষমান অভিভাবক ফাতেমা বাংলানিউজকে ‍আরও জানান, বলুয়ারদিঘি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে আমার ছেলে পিইসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। পরীক্ষায় ভাল প্রিপারেশনের জন্য স্কুলের পাশাপাশি বাসায়ও শিক্ষক রেখেছি। পরীক্ষার প্রিপারেশনও ভাল আছে। তবে টেনশন শুধু পরীক্ষা কেন্দ্র নিয়ে। নতুন স্কুলে এসে পরীক্ষা দেয়া নিয়ে ছেলে একটু ভয় আছে। নিজ স্কুলে পরীক্ষা হলে তো সমস্যা ছিল না। তাই টেনশনে আছি।’
এর আগে সকাল ১১টায় ইংরেজি বিষয়ের মধ্য দিয়ে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে একযোগে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয়। চলবে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত।
এবছর নগরীর ৬টিসহ চট্টগ্রামের ২০ শিক্ষা থানার ৩৪৬টি কেন্দ্রে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। চট্টগ্রামের ৩ হাজার ৭৯৪টি স্কুলের ১ লাখ ৫২ হাজার ৫৫২ জন খুদে পরীক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। এর মধ্যে ৭০ হাজার ৪৮৩ জন ছাত্র এবং ৮২ হাজার ৬৮ জন ছাত্রী রয়েছে।
একইভাবে ঘাটহরফাদবেগ এলাকা থেকে আসা তানজুমা মাহমুদ নামে আরেক অভিভাবক বাংলানিউজকে জানান, মেয়ের বয়স এখন দশ বছর। এই বয়সে অন্যস্কুলে এসে পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বিষয়টি আমার চোখে দৃষ্টিগোচর। সরকার তো বেশ কয়েকবার এই প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা না নেওয়ার বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করেছিল। কিন্তু যথারীতি আমাদের

325 total views, 2 views today

Leave a Reply

সর্বশেষ সংবাদ