মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২০

নিজের বাল্য বিয়ে ঠেকালো বরিশালে হাফসা

নিজস্ব প্রতিবেদক,

বরিশাল মহাবাজ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী মোসাঃ হাফসা (১৬) । বাবার নাম মোঃ ওমর ফারুখ। চরবাড়িয়া ইউনিয়নের চর আবদানী এলাকায় বসবাস।

গতকাল সোমবার পিরোজপুর জেলার সরূপকাঠী উপজেলার জনৈক আনিছুর রহমানের সাথে বিয়ে ঠিক হয়। পরিবারের সবাইকে হাফসা নিজের পড়ালেখার কথা বার বার জানালেও কেউ গায়ে মাখেনি। পরিবারের ইচ্ছায় সোমবার তার বিয়ের সব আয়োজন করা হয়। এক পর্যায়ে নিজেকে রক্ষায় হাফসা বেশ সাহসিকতার পরিচয় দেয়।

সমাজ সেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসারের মোবাইল নাম্বার সংগ্রহ করে সে কল দিয়ে জানায় যে, তাকে তার ইচ্ছের বিরূদ্ধে জোড় পূর্বক এই অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ে দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি সে আরো উচ্চ শিক্ষায় নিজেকে শিক্ষিত করে স্বাবলম্বী হতে চায় মর্মে জানায়। সংবাদ পেয়ে উপজেলা প্রশাসন, সমাজ সেবা অধিদপ্তর, কাউনিয়া থানা পুলিশ তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়। বিয়ে পন্ড করে ঘটনাস্থল থেকে উভয় পক্ষের দুইজনকে আটক করে নিয়ে আসে। পরে তাদেরকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়। আর এই ব্যবস্থা গ্রহনের কারণে কলিতেই ঝরে পড়া থেকে রক্ষা পেল একটি ফুল। বন্ধ করে দেয়া হয় বাল্য বিয়ে।
সমাজ সেবা অধিদপ্তরের বরিশাল মহানগরের প্রবেশন অফিসার শাহজাদী আক্তার বলেন, প্রথমে আমাকে ফোন দিয়ে হাফসা বলে ‘আপু, আমাকে বাচান’ আমার জীবনটা নষ্ট করা হচ্ছে। পরে আমি ঘটনার বিস্তারিত শোনার পওে সদর উপজেলা ইউএনও এবং কাউনিয়া থানা পুলিশকে জানাই এবং তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।
বরিশাল কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম পিপিএম বলেন, আমরা জানা মাত্রই এসআই শাহ আলমের নেতৃত্বে পুলিশ পাঠিয়ে দেই। পরবতির্তে সেখান থেকে উভয় পক্ষে দুইজনকে নিয়ে এসে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়।
বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইএনও) মোঃ হুমায়ুন কবীর বলেন, হাফসা নিজে তার বাল্যবিয়ে পারিবারিক ভাবে ঠেকানোর চেস্টায় ব্যর্থ হয়ে সমাজ সেবা অফিসের এক কর্মকর্তাকে জানায়। এভাবে আমরা সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক গিয়ে বিয়ে বন্ধ সহ ব্যবস্থা গ্রহন করেছি। হাফসা অত্যন্ত সাহসীকতার পরিচয় দিয়েছে। এভাবে সবার মধ্যে সচেতনতা ও সাহসিকতা থাকলে সমাজে অনেক অপতৎপড়তাই রোধ করা সম্ভব।

136 total views, 2 views today

সর্বশেষ সংবাদ