মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২০

চট্টগ্রাম

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পৌঁছেছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) দুপুর পৌনে ১টার দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। পরে সড়কপথে দুপুর দেড়টার দিকে উখিয়া উপজেলা কুতুপালং ট্রানজিট ক্যাম্পে যান। সেখানে নতুন করে আসা নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে তিনি কথা বলেন। এ সময় অন্তবর্তীকালীন কেন্দ্র ও ট্রানজিট ক্যাম্প অফিস পরিদর্শন করেন। তিনি পরে উখিয়ার বালুখালী-১ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থানরত আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আওএম) হাসপাতাল পরিদর্শন করবেন। পরে তার উখিয়ার বালুখালী-২ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন দাতা সংস্থার কার্যক্রম পরিদর্শন করার কথা রয়েছে। এ সময় তার সাথে ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সহ অন্যান্য কর্মকতারা।
খাগড়াছড়িতে ব্যাক্তির অধিকার সুরক্ষা আইন প্রতিবন্ধী অধিকার সনদ অবহিতকরণ সভা

খাগড়াছড়িতে ব্যাক্তির অধিকার সুরক্ষা আইন প্রতিবন্ধী অধিকার সনদ অবহিতকরণ সভা

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি॥ প্রতিবন্ধী ব্যাক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন ২০১৩ ও জাতিসংঘ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গের অধিকার সনদ বিষয়ক অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। খাগড়াছড়ির স্থানীয় বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা আলাম ও পার্বত্য চট্রগ্রাম প্রতিবন্ধী ফোরামের যৌথ উদ্যোগে ডিজএ্যাবিলিটি রাইটস এর সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার সকালে খাগড়াছড়ি উপজেলা সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী অফিসার তৃলা দেব এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো: রাশেদুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র রফিকুল আলম , খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান চঞ্চুমণি চাকমা, শহর সমাজসেবা কর্মর্কতা রোকেয়া বেগম, জেলা প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ শাহাজাহান। বক্তারা বলেন প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিরা ও মানুষ, অন্যান্য সাধারণ মানুষের মতো তাদের ও বেচে থাকার অধিকার আছে। বর্তমা
সন্তানের অপেক্ষায় মা

সন্তানের অপেক্ষায় মা

চট্টগ্রাম: এই প্রথম আমার ছেলে নিজ স্কুলের বাইরে এসে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। ছেলে রাতে বেশ কয়েকবার কোন কেন্দ্রে পরীক্ষা হবে তা জানতে চেয়েছে। পরীক্ষার হলে কি নিজ স্কুলের কোন স্যার থাকবেন কি না, এসব নানান প্রশ্ন করেছিল। তাই একটু চিন্তিত। ছেলে নার্ভাস ফিল করছে কি না।’ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর জামালখানে মোড়ে ফাতেমা নামে এক অভিভাবক এসব কথা বলছিলেন। নগরীর ডা. খাস্তগীর স্কুল কেন্দ্রে ছেলেকে প্রবেশ করিয়ে দিয়ে বাইরে অপেক্ষমান অভিভাবক ফাতেমা বাংলানিউজকে ‍আরও জানান, বলুয়ারদিঘি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে আমার ছেলে পিইসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। পরীক্ষায় ভাল প্রিপারেশনের জন্য স্কুলের পাশাপাশি বাসায়ও শিক্ষক রেখেছি। পরীক্ষার প্রিপারেশনও ভাল আছে। তবে টেনশন শুধু পরীক্ষা কেন্দ্র নিয়ে। নতুন স্কুলে এসে পরীক্ষা দেয়া নিয়ে ছেলে একটু ভয় আছে। নিজ স্কুলে পরীক্ষা

সর্বশেষ সংবাদ