মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ২০

বরিশাল

বরিশাল-ভোলা যাতায়াতে নদীতে ব্রিজ নির্মান করে দেয়া হবে-প্রধানমন্ত্রী

বরিশাল-ভোলা যাতায়াতে নদীতে ব্রিজ নির্মান করে দেয়া হবে-প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশাল বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জনসভায় ভাষন দিচ্ছেন। ভাষনে তিনি বলেন-ভোলার গ্যাস পাইপ লাইনের মাধ্যমে বরিশালে নিয়ে আসা হবে। শুধু গ্যাস নয় ভোলায় পাওয়ার প্লান্ট করে সেখান থেকে বিদ্যুত বরিশালে নিয়ে আসা হবে। শুধু বরিশাল থেকেই বরিশালে আসবে না, বরিশাল থেকে ভোলায় যাওয়ার জন্য ব্রিজ নির্মান করে দেয়া হবে। বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলায় নবনির্মিত দেশের ৩১তম ‘শেখ হাসিনা সেনানিবাস’র উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সেনানিবাসের পটুয়াখালীর লেবুখালী অংশ থেকে সেনানিবাসের উদ্বোধন করেন তিনি। জাতীয় ও জনগুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার নিরাপত্তাসহ দক্ষিণ উপকূলের ছয় জেলার প্রাকৃতিক দুর্যোগ মেকাবেলায় দেড় হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বরিশাল ও পটুয়াখালী জেলার দেড় হাজার একর এলাকায় আনুষ্ঠানিক সূচনা হল ১৭ হাজার জনবলের নবনির্মিত শেখ হাসিনা সেনানিবাস। এর আগে বেলা সোয়া ১১টার সময় প্র
বরিশালে ৮৯ উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বরিশালে ৮৯ উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বরিশাল ও পটুয়াখালীতে শেখ হাসিনা সেনানিবাসসহ ৮৯ উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বরিশাল বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভা থেকে ৭২টি উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। যার মধ্যে ৩৯টি উন্নয়ন কাজ ও ৩৩টি ভিত্তিপ্রস্তের উদ্বোধন করেন। এর আগে সকালে পটুয়াখালীর লেবুখালী থেকে শেখ হাসিনা সেনানিবাস ছাড়াও ১৬টি উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে তিনি। যেখানে ১৪টি উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন ও ১টি ভিত্তিপ্রস্ত স্থাপন করেন। সকাল সোয়া ১১টার সময় প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে করে সেনানিবাসের বরিশাল অংশের বাকেরগঞ্জ পৌঁছান শেখ হাসিনা। পরে পটুয়াখালীর লেবুখালী অংশে যান। লেবুখালী অংশে কর্মসূচি শেষে প্রধানমন্ত্রী হেলিকপ্টারে বরিশাল শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত স্টেডিয়ামে (জেলা স্টেডিয়াম) আসেন। পরে
বরিশাল বাসীর আজ আনন্দের দিন-আসছেন বিশ্ব মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা

বরিশাল বাসীর আজ আনন্দের দিন-আসছেন বিশ্ব মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ৮ ফেব্রুয়ারী (বৃহস্পতিবার) বিভাগীয় নগরী বরিশালে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। নগরীসহ গোটা দক্ষিণাঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে উৎসবের আমেজ। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে উৎফুল্ল নেতাকর্মীরা মহাব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। অপরদিকে পুরো নগরীজুড়ে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাঁদরে ঢেকে ফেলেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  সফরের মাধ্যমে আসন্ন সিটি ও জাতীয় নির্বাচনের প্রচার প্রচারণা শুরু হবে, তাই নেতাকর্মীরা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এ সফরকে স্বাগত জানাবেন। প্রধানমন্ত্রী সরকারী সফরে সকাল ১০টায় ঢাকার তেজগাঁও বিমান বন্দর থেকে দশজনের সফরসঙ্গী নিয়ে হেলিকপ্টারযোগে পটুয়াখালী জেলার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করবেন। এর পূর্বে সকাল নয়টা ৪৫ মিনিটে আওয়ামী লীগের মন্ত্রী, এমপি, কেন্দ্রীয় নেতা, সচি
শেখ হাসিনার সফর ঘিরে বরিশাল আওয়ামী লীগে ১০ উপ-কমিটি

শেখ হাসিনার সফর ঘিরে বরিশাল আওয়ামী লীগে ১০ উপ-কমিটি

বরিশাল নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে ৮ ফেব্রুয়ারি জনসভায় অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ উপলক্ষে প্রস্তুত হচ্ছে মাঠ। গতকাল প্রস্তুতি পরিদর্শন করেন স্থানীয় নেতারা   আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় অন্তত পাঁচ লাখ মানুষের সমাগম হবে বলে আশা করছেন জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ এমপি। ৬ বছর পর বরিশালে আসছেন প্রধানমন্ত্রী। তার সফর সফল করতে ১০টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই উপ-কমিটিগুলো স্ব-স্ব ক্ষেত্রে অবদান রেখে প্রধানমন্ত্রীর সফর সফল করবেন বলে জানান সদর আসনের এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণস্থল বঙ্গবন্ধু উদ্যানের জনসভা মঞ্চ সংস্কার করে বিশেষ ধরনের টাইলস স্থাপন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বরিশাল গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রিপন কুমার রায়। গতকাল দুপুরে জনসভাস্থল বঙ্গবন্ধু উদ্যান পরিদর্শনকালে মঞ্চ সাজসজ্জা এবং সম্প্রসারণের দিক নির্
প্রধান বিচারপতি হলেন সৈয়দ মাহমুদ

প্রধান বিচারপতি হলেন সৈয়দ মাহমুদ

আপিল বিভাগের বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন নতুন প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। গতকাল বেলা আড়াইটার দিকে তার নিয়োগ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে আইন মন্ত্রণালয়। এ প্রজ্ঞাপন জারির পরপরই ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা তার পদত্যাগপত্র জমা দেন। ওয়াহ্হাব মিয়ার জমাদার কামাল হোসেনসহ দুইজন বঙ্গভবনে গিয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে একটি রিসিভ কপি নিয়ে আসেন। ওই পত্রে ব্যক্তিগত কারণে পদত্যাগের কথা লিখেছেন বিচারপতি ওয়াহ্হাব মিঞা। তিনি লিখেছেন, ‘আমার অনিবার্য ব্যক্তিগত কারণ বশত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারকের পদ হইতে এতদ্বারা পদত্যাগ করিলাম।’ এ ছাড়া এদিন দুপুর ১২টার আগেই ব্যক্তিগত সব ফাইলপত্র নিজ খাসকামরা থেকে সরিয়ে বাসায় নিয়ে যান বিচারপতি আবদুল ওয়াহ্হাব। সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি লিখেছেন, ‘আমার অনিবার্য ব্যক্তিগত কারণ বশত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের

সর্বশেষ সংবাদ